শনিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শেষ মুহৃর্তের প্রস্তুতি বসুন্ধরা করোনা হাসপাতালের

প্রকাশিত : ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ, ৫ মে ২০২০ মঙ্গলবার ১২৮ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) আক্রান্তের চিকিৎসায় রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) স্থাপিত দেশের বৃহত্তম হাসপাতালটিতে শেষ মুহৃর্তের প্রস্তুতির কাজ চলছে। আগামীকাল সোমবার উদ্বোধন হতে পারে এ হাসপাতালের। এরই মধ্যে হাসপাতালটিতে পরিচালক পদে পদায়ন করা হয়েছে। উদ্বোধনকে সামনে রেখে বসুন্ধরা হাসপাতালে এখন চলছে শেষ মুহৃর্তের পরিচ্ছন্নতা ও সরঞ্জামাদি পরীক্ষার কাজ। পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে কেন্দ্রীয় শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা, বিভিন্ন চিকিৎসা সরঞ্জাম ও বিদ্যুতের সংযোগগুলো। আইসিসিবির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা এম এম জসীম উদ্দিন গতকাল শনিবার নিয়মিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

জসীম উদ্দিন বলেন, ‘পূর্ণাঙ্গ ফার্নিচার, সব ধরনের সরঞ্জাম বসানো হয়ে গেছে। আইসিইউ বাদে অন্যান্য সব প্রস্তুতি শেষ। আইসিইউ প্রস্তুতে কয়েকটা দিন সময় লাগবে। তবে এখন যেকোনো সময় রোগী এলে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব। বলা যায় হাসপাতাল প্রস্তুত। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ৪ মে হাসপাতাল উদ্বোধনের কথা বলা হয়েছে। এ জন্য শেষবারের মতো সব কিছু পরীক্ষা করা হচ্ছে। এখন চলছে মূলত রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ। উদ্বোধনের তারিখকে সামনে রেখে আমরা একেবারে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে, লাইনগুলো টেস্ট করে, এয়ারকন্ডিশনিং সিস্টেম ভালোভাবে মনিটর করে দিতে চাচ্ছি। সে কাজগুলোই চলছে।’ হাসপাতালটি ৪ তারিখেই হস্তান্তর হবে কি না—এমন প্রশ্নে আইসিসিবির এই কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা কনফারমেশন এখনো পাইনি। যেহেতু এখনো নিশ্চিতভাবে কিছু জানানো হয়নি, মনে হয় দু-এক দিন দেরিও হতে পারে।’

এদিকে আইসিসিবিতে নির্মিত হাসপাতাল চত্বর ঘুরে দেখা গেছে, চিকিৎসক ও নার্সের চেম্বারগুলোর কাজ শেষ। বেডগুলোতে বেডশিট, ডাস্টবিন, স্যালাইন হ্যাঙ্গারসহ আনুষঙ্গিক সাপোর্ট বসানো হয়েছে। টয়লেট নির্মাণও শেষ। হাসপাতালের এসি, চেয়ারসহ অন্যান্য কাজের ফিনিশিং শেষ। চালিয়ে পরীক্ষা করা হচ্ছে কেন্দ্রীয় শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর অনুযায়ী, হাসপাতালে মোট আইসোলেশন বেড হবে দুই হাজার ১৩টি। ট্রেড সেন্টারে ছয় ক্লাস্টারে এক হাজার ৪৮৮টি বেড বসবে। এ ছাড়া তিনটি কনভেনশন হলে থাকবে আরো ৫২৫টি বেড। এর বাইরে ৪ নম্বর হলে হবে ৭১ বেডের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ)।

উল্লেখ্য, করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসাসেবা দিতে সরকারকে আইসিসিবিতে পাঁচ হাজার শয্যার একটি সমন্বিত অস্থায়ী হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেন দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মতি দিলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি দল পরিদর্শন করে হাসপাতাল স্থাপনের উদ্যোগ নেয়। নানা হিসাব-নিকাশ, পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে সেখানে দুই হাজার ১৩ শয্যার হাসপাতাল ও ৭১ শয্যার আইসিইউ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। আইসিসিবির সুবিশাল চারটি কনভেনশন হল ও একটি এক্সপো ট্রেড সেন্টারে দেশের অন্যতম বৃহৎ এ হাসপাতালটির নির্মাণকাজ বাস্তবায়ন করছে সরকারের স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর। কভিড-১৯ বিপর্যয় শেষ না হওয়া পর্যন্ত এবং সরকারের যত দিন ব্যবহারের প্রয়োজন শেষ না হবে তত দিন আইসিসিবিতে স্থাপিত এ হাসপাতালটি ব্যবহারের কথা জানানো হয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT