শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে জাবিতে ‘প্রতীকী ক্লাস’

প্রকাশিত : ০৪:১৮ অপরাহ্ণ, ২৬ আগস্ট ২০২১ বৃহস্পতিবার ৩১ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে প্রায় দেড় বছরের বেশি সময় বন্ধ থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ‘প্রতীকী ক্লাস’ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে এক ঘণ্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার ও পরে (বৃষ্টির কারণে) কলা ও মানবিক বিভাগের করিডোরে এই ব্যতিক্রমী আয়োজন করা হয়।

প্রতীকী ক্লাসের এই সমাবেশে ক্লাস নেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক রায়হান রাইন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ৫০ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে, বুধবার রাতে অধ্যাপক রায়হান রাইন সশরীরে ক্লাস নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। এই ঘোষণার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আনু মুহাম্মদও আগামী ২৯ আগস্ট সশরীরে ক্লাস নেওয়ার ঘোষণা দেন।

রায়হান রাইন সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কথা বলে আমাদের বারবার মিথ্যা আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে। যেভাবে সরকারের অন্যান্য দপ্তর, বিনোদন কেন্দ্র ও কলকারখানা চলছে, ঠিক সেভাবেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে। এই প্রতীকী ক্লাস আজকে থেকে শুরু হয়েছে এবং এটা জারি থাকবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, শিক্ষার্থীদের প্রতীকী ক্লাসে অংশগ্রহণে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, সকাল থেকেই ইসলামনগর বাজার সংলগ্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট দিয়ে যানবাহন প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জয় বাংলা ফটকে গণমাধ্যমকর্মীদেরও প্রবেশে বাধা প্রদানের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিবুল হক বলেন, এতদিন পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামনগর সংলগ্ন গেট দিয়ে যানবাহন চলাচল শিথিল ছিল। কিন্তু হুট করেই আজকে সকাল থেকে গেট দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করা হয়। এই ঘটনার দ্বারা প্রশাসন প্রমাণ করলো যে তারা বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিতে কতটা অনাগ্রহী।

ইসলামনগর গেটের দায়িত্বরত গার্ড বলেন, সকালেই আমাকে জানানো হয় যে আজকে নাকি শহীদ মিনারে কোনো শিক্ষক ক্লাস নেবেন। এজন্য শিক্ষক ছাড়া আর কাউকে যেন রিকশা নিয়ে ক্যাম্পাসে ঢুকতে না দেই। যদি কারো জরুরি প্রয়োজন থাকে, তাহলে প্রক্টরের সাথে কথা বলে অনুমতি নিতে বলা হয়েছে আমাকে। আমি এখানে আমার দায়িত্বই পালন করছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘আমি তো বিশ্ববিদ্যালয়ের গেইটের ব্যাপারে কিছুই জানি না। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের গেইটের দায়িত্ব নিরাপত্তা অফিসের। সুতরাং আমি এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারি না।’

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন বলেন, ‘গেট বন্ধ রাখার কোনো নির্দেশনা আমি দেইনি।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT