মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
◈ রাজধানীতে মাদক বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪০ ◈ হাতিরঝিলের সেই অজ্ঞাত লাশের রহস্য উদঘাটন হল যেভাবে ◈ ফের করোনা সংক্রমণের রেকর্ড, এক সপ্তাহে শনাক্ত ২৪ লাখ ◈ আজ দেশের যে ১১ অঞ্চলে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা ◈ অবশেষে মুক্ত ভিসি, আন্দোলন স্থগিত ◈ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট ও মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার সুপারিশ ◈ বৃহস্পতিবার কুয়েতের আদালতে তোলা হচ্ছে এমপি পাপুলকে ◈ সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা, নাটোরের দুই কোল্ড স্টোরেজকে জরিমানা ◈ টটেনহ্যামের বিপক্ষে ওয়েস্টহ্যামের নাটকীয় ড্র ◈ শুধু ফ্রি ওয়াই-ফাই পেতে সদ্যোজাত সন্তানের ব্যাপারে যে অদ্ভুত সিদ্ধান্ত নিলেন দম্পতি!

তিস্তা ব্যারেজে ইঁদুরের গর্ত, মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা কৃষকের

প্রকাশিত : ০৮:০৪ পূর্বাহ্ণ, ১৮ এপ্রিল ২০২০ শনিবার ১১৫ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

চলতি বছর পর্যাপ্ত পানি পাওয়া গেলেও প্রকল্পের অর্ধেক এলাকাতেও সেচ দিতে পারছে না দেশের অন্যতম বড় সেচপ্রকল্প তিস্তা ব্যারেজ। পরিচর্যাহীন ৩০ বছরের পুরোনো এই প্রকল্প। তার ওপর শত শত ইঁদুরের গর্ত চরম ভঙ্গুর অবস্থায় ফেলেছে পুরো প্রকল্পটিকে। তাই যখন-তখন ভেঙে পড়ছে বাঁধসহ অন্যান্য অবকাঠামো।

পুরোনো বাঁধগুলো পানির চাপ নিতে পারছে না, ভেঙে পড়ছে যখন-তখন। সবশেষ গত রোববার রংপুরের তারাগঞ্জে প্রধান খালের ৩৫ মিটার অংশ ভেঙে ভেসে যায় প্রবল স্রোতের তোড়ে। দুশ’ একরের বেশি ফসলি জমি, বেশ কিছু বাড়িঘর তলিয়ে যায়। ভেঙে যায় গ্রামীণ সড়ক। গত বছরও একই উপজেলায় বিধ্বস্ত হয়েছিল সেচ ক্যানেল। করোনা পরিস্থিতিতে এ যেনো কৃষকের কাছে মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকেরা বলেন, এক বছর আগে থেকেই ওখান থেকে পানি বের হয়। ক্ষেতগুলো সব তলিয়ে গেছে।

তিন দশক ধরে পরিচর্যা না হওয়ায় হাজার হাজার ইঁদুরের গর্ত ডেকে আনছে এমন ভয়াবহ পরিণাম। তাই পানি ছাড়ার আগে বাঁধ ভাঙার দুঃশ্চিন্তা পানি উন্নয়ন বোর্ডের।

সৈয়দপুর ক্যানেল ডিভিশনের পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী কৃষ্ণ কুমার সরকার বলেন, বাঁধ ভেঙে যাওয়ার সঠিকভাবে কারণ বলা যাচ্ছে না। তবে কিছু ইঁদুরের গর্ত ছিল।

তুলনামূলকবাবে এবার যথেষ্ট পানি মিলছে উজানে। তাই ৩৫ হাজার হেক্টর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও বাড়তি ২০ হাজার হেক্টরে পানি দিতে গিয়ে ঘটছে অঘটন।

রংপুর তিস্তা সেচ প্রকল্প পরিচালক জ্যোতিপ্রসাদ ঘোষ বলেন, গত বছর থেকে পর্যাপ্ত পানি আসছে কিন্তু আমাদের ক্যানেলগুলো খারাপ হওয়ায় এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে।

এক লাখ ১০ হাজার হেক্টর জমিতে সেচ দেয়ার জন্য নীলফামারী, রংপুর ও দিনাজপুর জেলায় বিস্তৃত প্রকল্পের সেচ অবকাঠামো। পুরো প্রকল্পটি সংস্কারের জন্য দুই হাজার কোটি টাকার একটি প্রকল্প চূড়ান্ত পর্যায়ে থাকলেও করোনা পরিস্থিতি বাধ সেধেছে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT