বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারি ২০২২, ৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন সহিংসতামুক্ত অবস্থায় অনুষ্ঠিত হোক

প্রকাশিত : ০৫:১০ পূর্বাহ্ণ, ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ সোমবার ৩২ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

চতুর্থ ধাপে দেশের ৫৮ জেলার ১১৮ উপজেলার ৮৩৬টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে আজ। শুক্রবার রাতে নির্বাচনি প্রচার শেষ হয়েছে। নির্বাচনে সহিংসতার আশঙ্কায় এদিন সকাল থেকে নির্বাচনি এলাকাগুলোয় পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির সদস্যরা মাঠে নেমেছেন। তবে সহিংসতা থেমে নেই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বাড়তি সদস্য মোতায়েন সত্ত্বেও শুক্রবার ভোলার পশ্চিম ইলিশা ও রাজাপুরে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন ৩০ জন। এ সময় আওয়ামী লীগের কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে নওগাঁর মহাদেবপুর, ময়মনসিংহের গৌরীপুর, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া, টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের বিভিন্ন ইউনিয়নে সহিংস ঘটনা ঘটেছে। উল্লেখ করা যেতে পারে, আলোচ্য ইউনিয়ন পরিষদগুলোর ৪৮ জন চেয়ারম্যানসহ ২৯৫ জন জনপ্রতিনিধি ইতোমধ্যে ভোট ছাড়াই নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি পদগুলোতে নির্বাচন হবে আজ।

চলমান ইউপি নির্বাচনে দুটি সাধারণ বিষয় লক্ষ করা যাচ্ছে। একটি সহিংসতা, অন্যটি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়া। ইউপি নির্বাচনের শুরু থেকে এ পর্যন্ত সহিংসতায় ৮০ জনের বেশি ব্যক্তি নিহত হয়েছেন আর আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) তথ্য অনুযায়ী, গত জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে ৪৪২টি। অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায়, আজকের নির্বাচনগুলোসহ আগামী নির্বাচনগুলোয়ও সহিংসতার ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। আমরা এ প্রসঙ্গে বলতে চাই-যথেষ্ট হয়েছে, আর নয়। আমরা মনে করি, নির্বাচনি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশগ্রহণ করাটাই বড় কথা, জনগণের ভোটে কে জিতল আর কে হারল তা গুরুত্বপূর্ণ নয়। গণতন্ত্রের মূল কথাই হলো, নির্বাচকমণ্ডলী তাদের বিবেচনায় যোগ্য প্রার্থীকে নির্বিঘ্নে ভোট দেবে এবং এর ফলাফল নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সবাইকে মেনে নিতে হবে। পরিতাপের বিষয়, নির্বাচনে যে কোনো প্রকারে নির্বাচিত হওয়ার প্রবণতা দিন দিন প্রকট হচ্ছে। আর এ প্রবণতার ফলে প্রাণ যাচ্ছে মানুষের। আমরা আশা করব, আজকের নির্বাচন সহিংসতামুক্ত অবস্থায় অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায়ও জড়াবে না কেউ। এ ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। তাদেরকে সদা-সতর্ক অবস্থায় থাকতে হবে, যাতে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহিংসতার সূত্রপাত না হয়। আমরা মনে করি, যে কোনো নির্বাচন নির্বিঘ্ন ও সহিংসতামুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে নির্বাচকমণ্ডলী তথা ভোটার শ্রেণির ভূমিকা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তারা যদি গণতান্ত্রিক চেতনায় ভোট প্রদানে অংশ নেয়, তাহলেই নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হতে পারে। আজকের নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সব পক্ষকে আমরা সুনাগরিক হিসাবে দেখতে চাই।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT