মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঘন কুয়াশার সঙ্গে বৃষ্টি দুর্ভোগে জনজীবন

প্রকাশিত : ০৮:৫১ পূর্বাহ্ণ, ২৫ জানুয়ারি ২০২৪ বৃহস্পতিবার ১৪ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘন কুয়াশার সঙ্গে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে খেটে-খাওয়া মানুষজন সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন। কাজে যেতে না পারায় তারা অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছেন। মৃদু ও মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকায় চুয়াডাঙ্গা, কিশোরগঞ্জ, জয়পুরহাটসহ দেশের কোথাও কোথাও বৃহস্পতিবারও স্কুল বন্ধ থাকবে। এদিকে, নওগাঁসহ কয়েকটি স্থানে বুধবারও স্কুল খোলা ছিল। ঘন কুয়াশায় যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণে মহাসড়কে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। প্রচণ্ড শীতে মাঠের ফসলেরও ক্ষতি হচ্ছে। এ সম্পর্কে প্রতিবেদন, ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বুধবার সন্ধ্যা ৬টার পর ঢাকার কয়েকটি স্থানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবারও বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। ঢাকা ছাড়াও খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কয়েকটি জেলায় বৃষ্টি হতে পারে। একই সময়ে দেশের উত্তরাঞ্চলসহ বিভিন্ন জেলার ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। আগামী সপ্তাহেও বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ স্বাক্ষরিত পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৮ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোচ্চ ২৫ দশমিক ৭ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছিল টেকনাফে। আগামী ৩ দিনের পূর্বাভাসে বলা হয়-ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু-এক জায়গায় হালকা বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। কিশোরগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। কুয়াশার বিষয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারা দেশে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। কোথাও কোথাও তা দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। ঘন কুয়াশার কারণে বিমান চলাচল, অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহণ এবং সড়ক পরিবহণ চলাচল ব্যাহত হতে পারে।

চট্টগ্রাম : বুধবার দিনভর চট্টগ্রামে সূর্যের দেখা মেলেনি। মেঘলা আকাশ ও কুয়াশায় সকাল থেকে শীতের অনুভূতি বেশি হয়েছে। বিকালের পর তা আরও বেড়ে যায়। আবহাওয়া দপ্তর জানায়, সাগরে লঘুচাপের কারণে হালকা বৃষ্টি হতে পারে। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ ও পূর্বাভাস কর্মকর্তা সুমন সাহা জানান, কোথাও কোথাও হালকা বৃষ্টি হয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। চট্টগ্রামে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) : ঘন কুয়াশায় বঙ্গবন্ধু সেতুতে চারটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছেন। বঙ্গবন্ধু সেতুর উপর ঢাকা ও উত্তরবঙ্গগামী লেনে দুর্ঘটনাগুলো ঘটে। এদিকে, মঙ্গলবার গভীর রাতে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব পাড় থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার সড়কে গাড়ি ধীরগতিতে চলে। এতে চালক ও যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েন। বুধবার সকাল ৯টার দিকে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। বঙ্গবন্ধু সেতুসাইট অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসানুল কবীর পাভেল বলেন, মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার ভোরে সেতুর ওপর চারটি দুর্ঘটনা ঘটে। সেগুলো দ্রুততম সময়ে সেতু কর্তৃপক্ষের রেকার দিয়ে সরানো হয়। এতে টোল আদায়ে বিঘ্ন ঘটে এবং মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়ে যায়। তিনি আরও বলেন, ঘন কুয়াশায় মহাসড়কে গাড়ির গতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে টোলপ্লাজা এলাকায় সতর্কতামূলক লিফলেট বিতরণসহ সেতুর পূর্ব ও পশ্চিম অংশে মাইকিং করা হচ্ছে।’

চুয়াডাঙ্গা : হাড় কাঁপানো শীতে মানুষ নাজেহাল হয়ে পড়ছে। শীতের সঙ্গে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। স্বাভাবিক কাজ করতে পারছে না দিনমজুররা। এদিকে, জেলার সব মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। বুধবার সকাল ৯টায় জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আতাউর রহমান জানান, বৃহস্পতিবারও সব বিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

নওগাঁ : সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী-তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে থাকলে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ রাখার কথা। নওগাঁয় সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলেও জেলার বিদ্যালয়গুলো খোলা রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফর রহমান বলেন, তাপমাত্রা কোনো দিন কমছে, আবার কোনো দিন বাড়ছে। এ কারণে তারা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন। মঙ্গলবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকলেও ঝলমলে রোদ উঠে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, বুধবার তাপমাত্রা বাড়তে পারে। তাই স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়নি। নওগাঁয় এক সপ্তাহ ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ থেকে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ওঠানামা করছে। এতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে।

কুড়িগ্রাম : কনকনে ঠান্ডা ও ঘন কুয়াশায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় পর্যায়ের দুই হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত স্কুল বন্ধ থাকবে। বুধবার সকাল ৯টায় জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। যা মঙ্গলবার ছিল ৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সূর্যের দেখা মিলছে না। দিনের অধিকাংশ সময় আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকছে। শীত ও কনকনে ঠান্ডায় হাসপাতালগুলোতে বাড়ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট, সর্দি কাশিসহ শীতজনিত রোগীর সংখ্যা।

কিশোরগঞ্জ : শৈত্যপ্রবাহের কারণে নিকলী উপজেলার ৭২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছে। বুধবার নিকলীর তাপমাত্রা ছিল ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবার ছিল ৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামছুন নাহার মাকসুদা জানান, আবহাওয়া অফিস থেকে খবর পেয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছি। এদিকে, অভিভাবকদের অভিযোগ, তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নামলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার বিষয়টি প্রশাসন ঝুলিয়ে রাখে। ফলে ঠান্ডাজনিত রোগে শিক্ষার্থীরা আক্রান্ত হচ্ছে।

জয়পুরহাট : জেলার তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে থাকায় বৃহস্পতিবারও জেলার সব প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা। আগের কয়েকদিনও স্কুল বন্ধ রাখা হয়।

সাতক্ষীরা : বুধবার সকালে জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। শীতে বিশেষ করে ছিন্নমূল মানুষ চরম বিপাকে পড়েছে।

দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) : দুপুর পর্যন্ত ট্রেন ও যানবাহনকে হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করতে দেখা যায়। শীত থাকায় প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে সাধারণ মানুষ বের হচ্ছে না। নিম্ন আয়ের লোকজন পড়েছেন বিপাকে।

পাইকগাছা (খুলনা) : শৈত্যপ্রবাহ, ঘন কুয়াশা ও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে বোরো ধানের বীজ উৎপাদন খামার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। উপজেলার বোয়ালিয়া সরকারি বীজ উৎপাদন খামারে ৪৫ বিঘার বীজতলা ও চারার ক্ষতি হয়েছে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।



এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT