শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
◈ কিশোরীদের আত্মরক্ষার্থে মাসব্যাপী কারাতে প্রশিক্ষণের উদ্বোধন ◈ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার ◈ ‘দেশে করোনায় মৃতদের ৬০ শতাংশের বেশি ডায়াবেটিস-উচ্চরক্তচাপের রোগী’ ◈ ঘাটতি পূরণে প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য ১১ দফা নির্দেশনা ◈ ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জের প্রতারণার পর এবার আলোচনায় কিউকম ◈ বাংলাদেশিদের ওপর থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার জাপানের ◈ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের নামে প্রতিবন্ধী কার্ড ◈ ১৫ দফা দাবিতে তিনদিনের ধর্মঘটের ডাক ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির ◈ করোনা: বরিশালে রেকর্ড সর্বনিম্ন শনাক্ত ◈ এখনও করোনা সংক্রমণের কোনও খবর আসেনি: শিক্ষামন্ত্রী

গোপালগঞ্জে চরম অনিশ্চয়তায় পাট চাষীরা

প্রকাশিত : ০২:৫৮ পূর্বাহ্ণ, ১৫ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার ৭৯৮ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

 

সোনালী আঁশ পাটকে বিবেচনা করা হয় দেশের প্রধান অর্থকারী ফসল হিসেবে। কিন্তু এ বছর গোপালগঞ্জে পাটের ফলন ভাল হলেও খাল-বিলে পানি না থাকায় পাট ঠিকভাবে পঁচাতে পারছেন না কৃষকরা। এক পানিতে বার বার পাট পঁচানোর ফলে পাটের আশঁ ভাল না হওয়ায় ও কালো রং ধারন করায় দাম নিয়ে আশংকায় রয়েছেন কৃষকেরা।

গোপালগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে জানাগেছে, এ বছর গোপালগঞ্জের ৫ উপজেলায় সাড়ে ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ করা হয়েছিল। আর এ সোনালি আঁশ পাট নিয়ে বিপাকে পড়েছেন চাষিরা। এ বছর গোপালগঞ্জে পাটের ফলন ভালো হলে শেষ সময়ে দেখা দিয়েছে অনাবৃষ্টি। ফলে পাট গাছ বড় হলেও পানির অভাবে গাছ পূড়ে যাওয়ায় অপরিপক্ক পাট কেটে ফলতে হচ্ছে কৃষকদের।

সেই সাথে বৃষ্টি অভাবে খাল-বিল, ডোবা, নালায় পানি না থাকায় চাষীরা তাদের উৎপাদিত পাট পঁচাতে পারছেন না। অল্প পানিতে অধিক পাট পঁচানোর ফলে আঁশ কালো রং ধারন করেছে। ফলে বাজারে আশানুরুপ দাম পাচ্ছেন না তারা। যে কারনে লোকসানের মুখে রয়েছে জেলার কয়েক হাজার পাট চাষী।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোষেরচর এলাকার পাটচাষী আক্কাস আলি, কালাচাদ বিশ্বাস, টুঙ্গিপাড়া উপজেলার কুশলি এলাকার পাটচাষী রহমান শেখ ও হবিবর মোল্ল্য জানান, অল্প পানিতে অধিক পাট পঁচানোর ফলে আঁশ কালো রং ধারন করছে। ফলে বাজারে আশানুরুপ দাম পাচ্ছেন না তারা। যে কারনে লোকসানের মুখে রয়েছে জেলার হাজার হাজার পাট চাষী। আড়তদার জাহাঙ্গীর হোসেন, মো: হান্নান শেখ বলেন, এবছর পাটের আবাদ ভাল হলেও পানির অভাবে পাট পচাতে পারেছেন না কৃষকরা। অল্প পানিতে বারবার পাট পচানোয় আশেঁর রং কালো হয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে ১৫’শ থেকে ১৯’শ টাকায় প্রতি মন বিক্রি হলেও পাটের আঁশ ভালো না হওয়ায় ও কালো রং ধারন করায় পাটের দাম কমে যেতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

গোপালগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের, উপ-পরিচালক, রমেশ চন্দ্র ব্রহ্ম বলেছেন, বর্ষার পানি না হওয়ার কারনে পাট ঠিকভাবে পঁচাতে না পারায় পাটের আঁশ খারাপ হওয়ায় ও কালো রং ধারন করায় কৃষকরা চাহিদামত দাম পাচ্ছেন না।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT