রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কেন ৪৫ দিনেই পদত্যাগে বাধ্য হলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী?

প্রকাশিত : ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ, ২১ অক্টোবর ২০২২ শুক্রবার ৬৩ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

মাত্র ৪৫ দিন দায়িত্ব পালন করেই প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস। এক সপ্তাহের মধ্যে কনজারভেটিভ পার্টির নতুন নেতা এবং প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করা হবে। এরপর আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন তিনি।

কেন এত কম সময়ের মধ্যে প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়তে হলো ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসকে?

লিজ ট্রাস ক্ষমতায় আসার মাত্র তিন সপ্তাহ পর মারাত্বক একটি ভুল করে বসেন। তিনি তার অর্থমন্ত্রী কাওয়াসি কাওয়ারতেংকে দিয়ে ৪৫ বিলিয়ন ডলার কর ছাড় দেওয়ার একটি প্রস্তাব উত্থাপন করেন। যেটিকে তারা ‘মিনি বাজেট’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন। কিন্তু তাদের এ মিনি বাজেটের কারণে টালমাটাল হয়ে যায় যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি। মার্কিন ডলারের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ডের রেকর্ড দরপতন হয়।

এ সিদ্ধান্তের কারণেই লিজ ট্রাসের প্রধানমন্ত্রিত্ব হুমকির মুখে পরে যায়। তার নিজ দলের সদস্যরা তার বিরুদ্ধে যান। বিভিন্ন নাটকীয়তা শেষে তাকে শেষমেষ বাধ্য হয়ে পদত্যাগ করতে হলো।

অবস্থা বেগতিক দেখে গত সপ্তাহে কাওয়াসি কাওয়ারতেংকে অর্থমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করতে বাধ্য হন লিজ ট্রাস। এরপর নতুন অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন জেরেমি হান্ট। তিনি দায়িত্ব নিয়ে ট্রাস-কাওয়াসির অর্থনৈতিক পরিকল্পনা বাতিল করে দেন। কিন্তু পরিকল্পনা বাতিল করলেও যে ক্ষতি লিজ ট্রাস করে ফেলেন সেটি আর কাটিয়ে ওঠতে পারেননি।

লিজ ট্রাসের নিজ দলের বেশ কয়েকজন সদস্য প্রকাশ্যে তাকে পদত্যাগের আহ্বান জানান। এরপর বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুয়েলা ব্র্যাভারম্যান পদ্ত্যাগ করলে ট্রাসের পদত্যাগ ত্বরান্বিত হয়।

লিজ ট্রাস রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শাসনামলের শেষ প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তাকে নিয়োগ দেওয়ার দুইদিন পরই এলিজাবেথ মারা যান।

সদ্যই সাবেক প্রধানমন্ত্রী হওয়া লিজ ট্রাস বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়ে অর্থনীতিবীদ হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। তিনি শেল এবং ক্যাবল ওয়্যারসে চাকরি করেন। তিনি ২০০০ সালে হিসাবরক্ষক হিউগ ও’লেরিকে বিয়ে করেন। তাদের দুটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। তার পরিবার বাস করেন নরফোকের থেটফোর্ডে।

সূত্র: বিবিসি

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।



এই বিভাগের জনপ্রিয়

ইরানি বংশোদ্ভূত দুই ব্রিটিশ নাগরিককে দীর্ঘদিন বন্দি রাখার পর মুক্তি দিয়েছে তেহরান। ৪৩ বছর আগের দেনা হিসেবে যুক্তরাজ্য ৪০ কোটি পাউন্ড ইরানের কাছে হস্তান্তরের পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।     বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুক্তির পর নাজানিন জাঘারি ও আনোশেহ আশোরি যুক্তরাজ্যে পৌঁছেছেন।  নাজানিন জাঘারি প্রায় ছয় বছর ধরে ইরানে বন্দিজীবন কাটিয়েছেন। সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করেছেন বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়।  নাজানিন জাঘারি ও আনোশেহ আশোরিকে বহনকারী প্লেন অক্সফোর্ডশায়ারের ব্রিজ নর্টন ব্রিটিশ সামরিক বিমানঘাঁটিতে অবতরণ করে। এর আগে তারা ওমানে সাময়িক সময়ের জন্য যাত্রা বিরতি নেন।  তারা একসঙ্গেই প্লেন থেকে নেমে আসেন এবং বিমানবন্দরে প্রবেশের পর পর উপস্থিত লোকজনের উদ্দেশে হাত নাড়েন। এদিকে মার্কিন নাগরিকত্ব থাকা মোরাদ তাহবেজ নামে আরও একজনকেও কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।  বুধবার তাদের মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ত্রাস এবং প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।   এ বিষয় ইরানের গণমাধ্যম জানিয়েছে, এর আগে ইরানের কাছে ইসলামি বিপ্লবের আগে অর্থাৎ প্রায় ৪৩ বছর আগের দেনা হিসেবে ব্রিটিশ সরকার তেহরানকে ৪০ কোটি পাউন্ড (৫২০ মিলিয়ন ডলার) প্রদান করেছে।  ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, এটি নিশ্চিত করতে পেরে আমি খুব খুশি, নাজানিন জাঘারি এবং আনোশেহ আশোরিকে অন্যায়ভাবে বন্দি রাখার দিন শেষ হয়েছে। তারা মুক্তি পেয়ে যুক্তরাজ্যে ফিরেছে।

ইরানি বংশোদ্ভূত দুই ব্রিটিশ নাগরিককে দীর্ঘদিন বন্দি রাখার পর মুক্তি দিয়েছে তেহরান। ৪৩ বছর আগের দেনা হিসেবে যুক্তরাজ্য ৪০ কোটি পাউন্ড ইরানের কাছে হস্তান্তরের পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুক্তির পর নাজানিন জাঘারি ও আনোশেহ আশোরি যুক্তরাজ্যে পৌঁছেছেন। নাজানিন জাঘারি প্রায় ছয় বছর ধরে ইরানে বন্দিজীবন কাটিয়েছেন। সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করেছেন বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। নাজানিন জাঘারি ও আনোশেহ আশোরিকে বহনকারী প্লেন অক্সফোর্ডশায়ারের ব্রিজ নর্টন ব্রিটিশ সামরিক বিমানঘাঁটিতে অবতরণ করে। এর আগে তারা ওমানে সাময়িক সময়ের জন্য যাত্রা বিরতি নেন। তারা একসঙ্গেই প্লেন থেকে নেমে আসেন এবং বিমানবন্দরে প্রবেশের পর পর উপস্থিত লোকজনের উদ্দেশে হাত নাড়েন। এদিকে মার্কিন নাগরিকত্ব থাকা মোরাদ তাহবেজ নামে আরও একজনকেও কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। বুধবার তাদের মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ত্রাস এবং প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এ বিষয় ইরানের গণমাধ্যম জানিয়েছে, এর আগে ইরানের কাছে ইসলামি বিপ্লবের আগে অর্থাৎ প্রায় ৪৩ বছর আগের দেনা হিসেবে ব্রিটিশ সরকার তেহরানকে ৪০ কোটি পাউন্ড (৫২০ মিলিয়ন ডলার) প্রদান করেছে। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, এটি নিশ্চিত করতে পেরে আমি খুব খুশি, নাজানিন জাঘারি এবং আনোশেহ আশোরিকে অন্যায়ভাবে বন্দি রাখার দিন শেষ হয়েছে। তারা মুক্তি পেয়ে যুক্তরাজ্যে ফিরেছে।

© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT