শনিবার ২৪ অক্টোবর ২০২০, ৮ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লার লাকসামে নাঈম হোসেন আকাশ (১২) নামের এক শিশু ডাকাতিয়া নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজের সাড়ে ৭ ঘণ্টা পর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চাঁদপুর থেকে আসা ডুবরিদল দল তার মরদেহ উদ্ধার করে। জানা যায়, উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর উত্তরপাড়ার দিনমজুর মো. মানিক মিয়ার ছেলে নাঈম হোসেন আকাশ দুপুরে বাড়ির পাশে ডাকাতিয়া নদীতে গোসল করতে তলিয়ে যায়। পরে তার বাবা-মা নদীর ঘাটে খোঁজাখুঁজি করেন। কিন্তু দীর্ঘক্ষণেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। সংবাদ পেয়ে লাকসাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স’র সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা মো. শাহদাত হোসেইনের নেতৃত্বে দমকল বাহিনী শিশুর সন্ধান করতে পারেনি। পরে চাঁদপুর থেকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স’র ডুবরিদল এসে দীর্ঘ চেষ্টার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে। স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান, শিশুটির মৃগী রোগ ছিল। তাদের ধারণা নদীতে গোসল করতে নামার পর সে মৃগীরোগে আক্রান্ত হয়েছে। আর তখনই হয়তো নদীর স্রোতে তলিয়ে যায়। লাকসাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ.কে.এম সাইফুল আলম, গোবিন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নিজাম উদ্দিন শামীম ও লাকসাম পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবদুল আলিম দিদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও শিশুর পরিবারকে সান্ত্বনা জানান।

প্রকাশিত : ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ, ১৩ অক্টোবর ২০২০ মঙ্গলবার ১২ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

বদলেছে দুনিয়া। আর এই নগরায়ণের জেরে ক্রমশ বদলে যাচ্ছে আমাদের লাইফস্টাইল। ব্যস্ত কর্মজীবনে ৮টা ৫টা’র ডিউটি সামাল দিতে গিয়ে ফুসরত নেই মানুষের। কাজের প্রয়োজনে প্রতিদিনই আমাদের ঘর থেকে বাইরে যেতে হয়। কাজের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ব্যস্ততা। ব্যস্ততার কারণে ছুটির দিন ছাড়া অন্য দিনগুলোতে আমাদের রান্নার কাজ সারতে হিমশিম খেতে হয়। তাই অনেকে পুরো সপ্তাহের রান্না একবারে করে ফ্রিজে রাখেন। পরে তা ওভেন দিয়ে গরম করে খেয়ে থাকেন। আধুনিক কর্মব্যস্ত জীবনে এখন ইলেকট্রনিকস গ্যাজেট যেন বিলাসিতা।

আর এই বিলাসিতা দেখাতে গিয়ে আপনি নিজের বিপদ ডেকে আনছেন না তো? আপনি হয়তো ব্যস্ততা কারণে এমনটি করছে। শিশু থেকে বৃদ্ধ, পরিবারের সবাই খাচ্ছেন মাইক্রোওয়েভ ওভেনে গরম করা খাবার। কিন্তু এই অভ্যাস ক্যান্সার ডেকে আনতে পারে এমনটাই দাবি করছেন চিকিৎসকরা। সাধারণ শাকসবজি, ফলমূল কাটার পর এমনিতেই অনেকটা ভিটামিন নষ্ট হয়ে যায়। এছাড়া সবজি জল দিয়ে ভালোকরে ধুয়ে ফুটিয়ে রান্না করে খেলে তারমধ্যে আর কোনও পুষ্টিগুনই অবশিষ্ট থাকে না। তার উপর আপনি যদি একদিন রান্না করে খাবার ফ্রিজে রেখে ঘনঘন মাইক্রোওভেনে গরম করে খান তাহলে আপনার এই অভ্যাস অজান্তেই অনেক বিপদ ডেকে আনবে আপনার শরীরে।

সম্প্রতি একটি গবেষণায় বিশেষজ্ঞরা দেখিয়েছেন যে, মাইক্রোওয়েভে গরম করা খাবারে ভিটামিন বি১২ ক্রমে অকার্যকর হয়ে পড়ে। খাবার গরমের সময় এটি ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ ভিটামিন বি১২ নষ্ট করে দেয়। এছাড়া দুধ ও মাংসজাতীয় খাবারে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি১২ থাকে। তাই এসব খাবার যদি মাইক্রোওয়েভে গরম করা হয় তবে তার খাদ্যগুণ পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যায়। মাইক্রোওয়েভে খাবার গরম করার পর কিছু বিষাক্ত রাসায়নিক তৈরি হয়। যেমন বেঞ্জিন, জাইলিন। এগুলো খাবারের সঙ্গে মিশে গেলে শরীরে ক্যান্সারের মতো মারণ রোগের সৃষ্টি হতে পারে।
এছাড়াও প্লাস্টিকের বাক্সে খাবার গরম করে খেলে তা থেকে বিষাক্ত রাসায়নিক নির্গত হয়। এর ফলে হতে পারে ক্যান্সার। তাই মাইক্রোওয়েভে খাবার গরম না করাই ভালো। শুধু তাই নয়, হৃদস্পন্দনের গতিরও তারতম্য ঘটে মাইক্রোওয়েভ থেকে নির্গত রেডিয়েশনের কারণে। যারফলে মাইক্রোওয়েভে ডিম, দুধ, মাংস , মাশরুমজাতীয় খাবার গরম করে খাওয়া সবচেয়ে ক্ষতিকর বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে এতকিছুর পরেও মাইক্রোওয়েভে রান্নার বিষয়ে একেবারে নিষেধাজ্ঞা করছেন না বিশেষজ্ঞরা।

কারণ, ছোটোখাটো এই ইলেকট্রিক গ্যাজেট যেকোনও জায়গায় যেকোনওভাবে বহন করা যায়। যার ফলে যখন যেভাবে প্রয়োজন রান্নাও সেরে ফেলা যায়। তবে দরকার সঠিক পাত্রের। কারণ, রান্নার সময় মাইক্রোওয়েভ প্রুফ পাত্র ব্যবহার করলে বিপদের ঝুঁকি অনেকটাই কম থাকে। সূত্র : কলকাতা টোয়েন্টিফোর।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT