শনিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনায় গৃহবন্দি কালে দেশে বেড়েছে পারিবারিক সহিংসতা

প্রকাশিত : ১০:৩১ অপরাহ্ণ, ১ মে ২০২০ শুক্রবার ৮৪ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

দেশে করোনাভাইরাসের কারণে চলছে সরকারি বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা, ঘর বন্দি হয়ে আছে মানুষ। যার কারণে বেড়েছে পারিবারিক সহিংসতা। বিবিসির প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

পারিবারিক সহিংসতার শিকার হচ্ছে নারী পুরুষ উভয়ই। কিন্তু তাদের কেউ নাম প্রকাশ করতে বা এ বিষয়ে কোন ব্যবস্থা নিতে চাইছেন না। এদের মধ্য ধেকে লোক লজ্জার ভয়ে কেউ প্রকাশ না করলেও অনেকেই আবার অভিযোগ করছেন।

এমনই একজন রাজধানীর বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত এক নারী কর্মকর্তা। দীর্ঘদিন ধরে তাদের বৈবাহিক কলহ চলে আসলেও চলতি লকডাউন পরিস্থিতিতে এটি মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। সম্প্রতি তার স্বামীর থেকে বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। এ সংক্রান্ত আইনানুগ প্রক্রিয়াও শুরু করেছেন বলেও জানান তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই নারী বলেন, ছোটখাট নানা বিষয়ে কটূক্তি থেকে শুরু, মিথ্যা অপবাদ এমনকি শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছি।

তিনি আরো বলেন, সেদিন রাতে আমার স্বামী হঠাৎ করে আমাকে মারতে শুরু করে। এতোটাই মারে যে আমি উঠে দাঁড়াতে পারছিলাম না। এখন ও বাসায়, আমিও বাসায়। যেটা হয়, আমাকে নিয়ে যা-তা কথা বলে। আমি কেন বিকেলে ঘুমালাম, কেন রান্নাঘরে গেলাম না, কেন বাচ্চাকে পড়ালাম না, কেন কাজ শেষ করলাম না, এমন নানা ইস্যুতে নির্যাতন চলতেই থাকে। বাচ্চার কথা ভেবে এতোদিন সহ্য করেছি। এখন আর না। আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি ডিভোর্স দিয়ে দেব।

এ প্রসঙ্গে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের সিনিয়র উপ-পরিচালক নীনা গোস্বামী বলেন, গত কয়েক দিনে তাদের হেল্পলাইনে ঘরোয়া সহিংসতা সম্পর্কিত ফোন কলের সংখ্যা বেড়েছে।

তিনি আরো বলেন, বাস্তবিক যে চিত্র আমরা দেখতে পারছি সেটা বিশ্লেষণ করে বলা যায় যে পারিবারিক সহিংসতার হার অন্যসময়ের চাইতে এখন অনেক বেশি।

পারিবারিক সহিংসতার শিকার হয়ে অনেকে জরুরি নম্বরে ফোন করছেন। দেশে বর্তমান লকডাউন পরিস্থিতিতে পারিবারিক সহিংসতার চিত্র কেমন, সেটা নিয়ে কোন জরিপ করা হয়নি।

জাতীয় জরুরি হেল্পলাইনেও সহিংসতার বিরুদ্ধে সাহায্য চেয়েছেন অনেকে। অনেক নারী ফোন করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে চাইছেন। কিন্তু গণপরিবহন বন্ধ থাকায় তারা সেটা পারছেন না।

নির্যাতিত নারীদের আশ্রয়কেন্দ্রের ব্যবস্থা থাকলেও করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আতঙ্কে নতুন করে কাউকে সেখানে যুক্ত করা হচ্ছে না বলেও জানা গেছে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি anusandhan24.com'কে জানাতে ই-মেইল করুন- anusondhan24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

anusandhan24.com'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। anusandhan24.com | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT